bangla music

bangla music

জাতীয়

নৌকার ব্যাচ পরা কাউকে দেখলেই বের করে দেয়া হয়েছে

শরীয়তপুর সদর উপজেলার আংগারিয়া ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে হে‌রে গি‌য়ে সংবাদ স‌ম্মেল‌নে অঝরে কাঁদ‌লেন নৌকার প্রার্থী আসমা আক্তার। শনিবার সকাল ৮টার দিকে নিজ বাড়িতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে অ`ভিযোগ তু‌লে সাংবা‌দিক‌দের সাম‌নে কান্না করতে থা‌কেন তিনি।এসময় নির্বাচন পরবর্তী সময়ে বিজয়ী বি`দ্রোহী প্রার্থী ও তার কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে হা’ম’লা,

ভাঙচুর ও মা’রধ’রসহ বিভিন্ন অভিযোগ ক‌রেন আওয়ামী লীগ মনোনীত এই প্রার্থী। সংবাদ সম্মেলনে আসমা আক্তার বলেন, বিগত ১১ নভেম্বর আংগারিয়া ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।বিদ্রোহী প্রার্থী আনোয়ার হোসেন হাওলাদার (আনারস) ও তার সমর্থকরা অ’স্ত্রের মহড়া দিয়ে ভোট কারচুপি করেছে। নির্বাচন শেষ হওয়ার পর নৌকার সমর্থকদের ঘরে ঘরে গিয়ে মা’রধরসহ ঘর,

দোকান বন্ধ করে দেয় আনারস সমর্থকরা।অস্ত্র নিয়ে এলাকায় মহড়া দিয়ে জ’ঙ্গিবাদ শুরু করেছে এবং আমার লোকদের কাছে চাঁদা দাবি করছে তারা। কিন্তু পুলিশ কাউকে আটক করছে না। পু‌লি‌শের বিরু‌দ্ধে অ‌ভি‌যোগ তু‌লে তিনি বলেন, আনারসের লোকেদের শটগান হাতে নিয়ে মহড়া দেয়ার ভিডিও ভাইরাল হয়।এ ব্যাপারে থানায় মা’মলা

করতে গেলে, পুলিশ মা’মলা নেয়নি। নির্বাচনের দিন আনোয়ারের লোকজন অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিয়ে আমাদের লোকজনকে ভয়ভীতি দেখায়। বেলা ১১টার পর পুলিশ নৌকার ব্যাচ পরা কাউকে দেখলেই কেন্দ্র থেকে বের করে দিয়েছে। এই নির্বাচন আমি মানি না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে সহযোগিতা চাই।এই বিষ‌য়ে বিজয়ী প্রার্থী (আনারস)

আ‌নোয়ার হো‌সেন হাওলাদার ব‌লেন, বিএন‌পির পরিবা‌রের সদস্য হ‌য়েও আসমা আক্তার নৌকার প্রার্থী হ‌য়ে‌ছিল। এর জন্য সধারণ ভোটারা নৌকা থে‌কে মুখ ফি‌রি‌য়ে নি‌য়ে‌ছে। এখন হে‌রে গি‌য়ে সংবাদ স‌ম্মেলন ক‌রে মিথ্যা অ‌ভি‌যোগ তুল‌ছে। এ অ‌ভি‌যো‌গের কোন সত্যতা নেই।