bangla music

bangla music

জাতীয়

পাবনায় স্বামীর নৌকার বিপরীতে স্বতন্ত্র প্রার্থী দুই স্ত্রী!

পাবনা জেলার ভাঙ্গুড়া উপজেলার খানমরিচ ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী নুরুন নবী মণ্ডল দুলাল দলীয় প্রতীক নৌকা পেয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার আধা ঘণ্টা পরই তার দুই স্ত্রী একই ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এ নিয়ে এলাকায় দেখা দিয়েছে চাঞ্চল্য।নৌকা প্রতীকের বিপরীতে তার দুই স্ত্রী লড়বেন, নাকি অন্য কোন কারণে মনোনয়ন জমা দিলেন – এই নিয়ে পাবনা জুড়ে চলছে নানা জল্পনাকল্পনা।বৃহস্পতিবার দাখিলের শেষ দিনে ওই দুই নারী তাদের নিজ নিজ

মনোনয়নপত্র জমা দেন। তারা হলেন – প্রথম স্ত্রী ফেরদৌসী বেগম ও দ্বিতীয় স্ত্রী নাসিমা খাতুন। তাদের স্বামী দুলাল খানমরিচ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি।জানা গেছে, নুরুন নবী মণ্ডল দুলাল মাস্টার পেশায় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন। তিনি ইউপি নির্বাচনে প্রতিন্দ্বন্দ্বিতা করার লক্ষ্যে প্রায় ১ যুগ চাকরি থাকতেই তিনি সরকারী চাকরি থেকে স্বেচ্ছায় অবসর নেন।

গত রোববার তিনি দলীয় নৌকা প্রতীকে ওই ইউনিয়নে মনোনয়ন পান। বৃহস্পতিবার মনোনয়ন পত্র দাখিলের শেষ দিনে তিনি দলীয় নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন চেয়ারম্যান পদে দাখিল করেন। তার মনোনয়ন দাখিলের আধা ঘণ্টা পরই তার দুই স্ত্রী স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ফেরদৌসী বেগম ও নাসিমা খাতুন একই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দেন।

স্বামী ও দুই স্ত্রীর একই পদে প্রার্থিতা নিয়ে তাৎক্ষণিক আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে।উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও অষ্টমনিষা ও খানমরিচ ইউপি নির্বাচনের রির্টানিং অফিসার রুখসানা নাসরিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।এ ব্যাপারে খানমরিচ ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী নুরুন নবী মণ্ডল দুলাল বলেন,

বিশেষ কারণেই তিনিসহ তার দুই স্ত্রী চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।পাবনা জেলার সিনিয়র নির্বাচন অফিসার মাহবুবুর রহমান জানান, পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার চারটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ছিল। চেয়ারম্যান পদে ১৬ প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। আগামী ২৩ ডিসেম্বর খানমরিচ ইউনিয়নে ভোগগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।