bangla music

bangla music

জাতীয়

নতুন ভ্যারিয়েন্ট: আবারো লকডাউন নিয়ে যা বললেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রাণঘাতি ক’রো’নাভা’ইরা’সের ভ’য়াবহ প্রকোপ কমতে থাকায় জীবনযাত্রা স্বাভাবিক করতে গত আগস্টে লকডাউন বা বিধিনিষেধ শিথিল করে সরকার। বর্তমানে দেশে মহামারি এই ভা’ইরা’সটি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। যার কারণে অফিস-আদালত, হাট-বাজার থেকে শুরু করে সবকিছু স্বাভাবিকভাবেই চলছে। কিন্তু হঠাৎ করে ক’রো’নার নতুন ভ্যা’রিয়েন্ট ‘ও’মিক্র’ন’ আতঙ্গে পুরো বিশ্ব। নতুন এই ভ্যারিয়েন্ট ঠেকাতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। ইতোমধ্যে নতুন এই

ভ্যারিয়েন্ট মোকাবিলায় বিভিন্ন পদক্ষেপ নিতে চলেছে বাংলাদেশ সরকার। ইতোমধ্যে ১৮ দফা নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে। এমন অব্স্থায় ফের লকডাউনের শঙ্কাও তৈরি হয়েছে মানুষের মধ্যে। তবে বিষয়েটি পরিষ্কার করেছেন খোদ স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে এক বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন,

যেভাবে ক’রো’না’র ডে’ল্টা ভ্যা’রিয়েন্ট ছড়িয়েছিল তাতে অনেক ক্ষতি হয়েছে। এবারের ও’মিক্র’ন ভ্যা’রিয়ে’ন্টটি খুবই সংক্রামক তাই সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। আমরা আবার লকডাউন চাই না।জাহিদ মালেক জানান, ক’রোনা’র ও’মিক্র’ন ভ্যারিয়েন্ট খুবই সংক্রামক। আমরা ইতোমধ্যে হাসপাতাল প্রস্তুত করে রেখেছি। ১২০টি

হাসপাতালে ১৮ হাজার বেড আছে। সেখানে অক্সিজেন লাইনও আছে। এ ছাড়াও সিনিয়র বা ৬০ বছরের বেশি বয়স্কদের বু’স্টা’র ডো’জ দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।মন্ত্রী বলেন, ক’রো’না মোকাবিলায় জেলা কমিটিকে চিঠি দেওয়া হবে। তারা স্থানীয় প্রশাসনকে জানিয়ে দিবে যেন সামাজিক, ধর্মীয়, রাজনৈতিক অনুষ্ঠান সীমিত করা হয়। নতুন করে যেন অনুষ্ঠান হাতে নেয়া না হয় সে ব্যাপারে নজর দেওয়া হবে। মসজিদে যেন আলোচনা হয়, ভুল মেসেজ যেন না যায়।স্বাস্থ্যমন্ত্রীতিনি বলেন, স্কুলের দিন যেন না

বাড়ানো হয় সে ব্যাপারে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এভাবেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চলবে।এ ছাড়া ট্রেন-বাসে সবাইকে মাস্ক পরতে বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। চলাচলের সময় স্বাস্থ্যবিধি না মানা হলে মোবাইল কোর্টের আওতায় এনে জরিমানার ব্যবস্থা করা হবে।আর জেলা, উপজেলাসহ সব জায়গার খোঁজখবর নিয়ে

তড়িৎগতিতে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ন্যাশনাল মনিটরিং সেল করা হবে বলেও জানান মন্ত্রী।জাহিদ মালেক বলেন, বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠান সীমিত করতে প্রতিটি জেলায় চিঠি দিয়ে জানানো হবে। আর বিদেশ থেকে কেউ এলে তারা যাতে বাইরে কারও বাসায় যেতে না পারেন, সে বিষয়ে মনিটরিং করা হবে। প্রয়োজনে তাদের বাসাতে পতাকা দিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানান মন্ত্রী।