bangla music

bangla music

জাতীয়

লাল কার্ড হাতে রামপুরার সড়কে শিক্ষার্থীরা

নিরাপদ সড়কের দাবিসহ ১১ দফা দাবি নিয়ে আজও সড়কে নেমেছেন শিক্ষার্থীরা। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী রাজধানীর রামপুরায় লাল কার্ড হাতে নেমেছে তারা। সড়কের অব্যবস্থাপনা ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে লাল কার্ড দেখাতে তাদের এই অভিনব বিক্ষোভ।আজ শনিবার দুপুর ১২টা ১৫ মিনিটে খিলগাঁও মডেল কলেজের ২০-৩০ জন শিক্ষার্থী রামপুরা ব্রিজের হাতিরঝিল থানা অংশে লাল কার্ড নিয়ে আন্দোলন করছেন।শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে যান চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ না হলেও প্রগতি সরণির এক পাশে যান চলাচল কিছুটা ব্যাহত হচ্ছে। আন্দোলন থেকে শিক্ষার্থীরা তাদের দাবির পক্ষে নানা স্লোগান দিচ্ছেন।

উল্লেখ্য, গত ২৪ নভেম্বর সিটি করপোরেশনের গাড়ির ধাক্কায় নটরডেম কলেজের এক শিক্ষার্থী নিহত হয়। এরপরই সড়কে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। এর মধ্যেই ২৯ নভেম্বর রাতে রামপুরায় বাসের চাপায় এক এসএসসি পরীক্ষার্থী নিহত হয়। এ সময় বেশ কয়েকটি বাসে আগুন দেওয়া হয়। পরদিন থেকে রামপুরায় আন্দোলন শুরু করে শিক্ষার্থীরা।

আরও পড়ুন=আগামী ১২ ডিসেম্বর থেকে উত্তররা দিয়াবাড়ি থেকে আগারগাঁও রুটে চলাচল করবে মেট্রোরেল। আট সেট ট্রেন যাত্রী ছাড়া চলাচল করবে। এ জন্য রেললাইন, বৈদ্যুতিক সঞ্চালন লাইন ও স্টেশনের যাবতীয় প্রস্তুতি ইতোমধ্যে শেষ করা হয়েছে। গত আগস্ট থেকে মেট্রোরেলের পারফরমেন্স পরীক্ষা চলছে। ছয় মাস ধরে এ পরীক্ষা চলমান থাকবে। আগারগাঁও পর্যন্ত নয়টির মধ্যে ছয়টি স্টেশনে পরীক্ষামূলকভাবে মেট্রোরেল চালানো হয়েছে। ১২ ডিসেম্বর উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত নয়টি স্টেশনের মধ্যে

মেট্রোরেলের পারফরমেন্স পরীক্ষা করে দেখা হবে বলে জানিয়েছে ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডে।মেট্রোরেলের প্রজেক্ট ম্যানেজার এবিএম আরিফুর রহমান জাগে নিউজকে বলেন, ১২ ডিসেম্বর থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত মেট্রোরেল চলাচল করবে। এটা মূলত পরীক্ষামূলকভাবে চলাচল করবে। আট সেট ট্রেন চলবে যাত্রীছাড়া। লাইন ঠিক আছে কি না, বৈদ্যুতিক বিষয়গুলো কেমন আছে- এসব দেখার জন্য চলাচল করবে ট্রেন।

আগামী বছরের (২০২২ সালের) ডিসেম্বরে বাংলাদেশের প্রথম মেট্রোরেলের উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত অংশে বাণিজ্যিক চলাচল শুরুর পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। ২০ দশমিক ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ প্রকল্পটি উত্তরা তৃতীয় পর্ব থেকে কমলাপুর পর্যন্ত নির্মাণ করা হবে। প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি ৭২ শতাংশ। তবে উত্তরা তৃতীয় পর্ব থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত প্রকল্পের অগ্রগতি ৮৯ দশমিক ৬১ শতাংশ। প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ২২ হাজার কোটি টাকা।