bangla music

bangla music

জাতীয়

পরকীয়া প্রেমিকাকে নিয়ে কক্সবাজার ভ্রমণ, হোটেলে মিললো যুবকের লাশ

কক্সবাজারের পর্যটন জোন কলাতলীর আলম গেস্ট হাউজ নামের একটি আবাসিক হোটেল থেকে সঞ্জয় কুমার সরকার (৩০) নামের এক পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।শনিবার (৪ ডিসেম্বর) দুপুরে হোটেলের কক্ষে ফ্যানে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।সঞ্জয় কুমার সরকার সিরাজগঞ্জের বাসিন্দা ও তার দুই সন্তান রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।এ ঘটনায় তার সঙ্গে থাকা নুপুর (১৮) নামের এক তরুণীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে,

নিজের শিশুকন্যা ও স্ত্রীকে রেখে ওই তরুণীর সঙ্গে কক্সবাজার বেড়াতে আসেন সঞ্জয়। আবাসিক হোটেল থেকে মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করছেন কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মহিউদ্দীন আহমেদ।তিনি বলেন, ধারণা করা হচ্ছে, পরকীয়া প্রেমের কারণে সিরাজগঞ্জ থেকে কক্সবাজার ভ্রমণে এসে ওই হোটেলে রুম ভাড়া নেন সঞ্জয়। পরে দুজনের মধ্যে বনিবনা না হওয়ায় এ ঘটনা ঘটতে পারে। বিষয়টি পুলিশ তদন্ত করে দেখছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন=আখেরি মোনাজাতে বিশ্বশান্তি ও ঐক্য কামনার মধ্য দিয়ে শেষ হলো নীলফামারীর মিনি ইজতেমা। আজ শনিবার (৪ ডিসেম্বর) দুপুর মোনাজাতে অংশ নিয়েছিলেন লক্ষাধিক মুসল্লি। আমিন আল্লাহুম্মা আমিন ধ্বনিতে মুখরিত হয়েছিল ইজতেমা স্থল জেলা সদরের নগর দারোয়ানী সুতা কল মাঠ এলাকা। এ ছাড়া ইজতেমা ময়দান ও আশপাশের কয়েক কিলোমিটার এলাকাজুড়ে লাগানো মাইকে ছড়িয়ে পড়ে সেই ধ্বনি। বেলা ১২টা ৩০ মিনিটে শুরু হয়ে বেলা ১২টা ৩৮মিনিটে শেষ হয় আখেরি মোনাজাত।

মোনাজাতে অংশ নিতে ময়দানসহ আশপাশের রাস্তাঘাট, কলকারখানার ছাদ, খালি জায়গায় পলিথিন, পত্রিকা, পাটি ও জায়নামাজ বিছিয়ে অবস্থান নিয়েছিলেন পুরুষের পাশাপাশি অসংখ্যনারী।ইজতেমা ও আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে লাখো মুসল্লির সমাগম নির্বিঘ্ন করতে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নেয় নীলফামারী জেলা পুলিশ। দোয়া পরিচালনা করেন কাকরাইল জামে মসজিদের মাওলানা আব্দুল্লাহ মনসুর। (ছবি আছে)।